টঙ্গীতে অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্ত ১৪০টি পরিবারের মাঝে শাড়ী, লুঙ্গী ও কম্বল বিতরণ

0
623

টঙ্গীর মিলগেইট নামা বাজার এলাকায় অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্ত ১৪০টি পরিবারের মাঝে গাজীপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য, যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি আলহাজ্ব মোঃ জাহিদ আহসান রাসেল এর ব্যক্তিগত উদ্যোগে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাঝে শাড়ী, লুঙ্গী ও কম্বল বিতরণ অনুষ্ঠান গতকাল বৃহস্পতিবার বাদ আছর মিলগেইট নামাবাজার অগ্নিস্তুপ এলাকায় টঙ্গী থানা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আলহাজ্ব মনির আহম্মেদের সভাপতিত্বে, টঙ্গী পৌরসভার সাবেক কাউন্সিলর দুলাল মৃধার পরিচালনায় অনুষ্ঠিত হয়েছে। অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্ত ১৪০টি পরিবারের মাঝে শাড়ি, লুঙ্গী ও কম্বল বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি আলহাজ্ব মোঃ জাহিদ আহসান রাসেল। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন তুষকা গার্মেন্টস ফ্যাক্টরীর ব্যবস্থাপনা পরিচালক তারেক হাসান, অলিম্পিয়া টেক্সটাইল মিলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মতিউর রহমান বিকম, মন্নু টেক্সটাইল মিলের চেয়ারম্যান হারুন-অর-রশিদ, আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল আলীম, দেলোয়ার হোসেন, গাজীপুর মহানগর যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক সাইফুল ইসলাম, ট্রান্সপোর্ট ঠিকাদার মালিক সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক লিটন খান, টঙ্গীস্থ বৃহত্তম ময়মনসিংহ সমন্বয় পরিষদের সভাপতি জালাল উদ্দিন মাষ্টার, সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান টিটু, আওয়ামী লীগ নেতা সিদ্দিকুর রহমান, মোজাম্মেল হক, মফিজুল হক খান, আব্দুস সাত্তার, নূরুজ্জামান, যুবলীগ নেতা কাজী সিহাব, শাহজাহান সিরাজ সাজু, জাকির হোসেন, রঞ্জু আহম্মেদ প্রমুখ।
স্থানীয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব মোঃ জাহিদ আহসান রাসেল বলেন, বস্তিবাসী আমার বংশধর। আমার পিতা শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টার বস্তিবাসীদের সুখ-দুখে তাদের পাশে থাকতেন। আমার পিতার ন্যায় বস্তিবাসীদের কষ্টের কথা শুনে অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাঝে আমার নিজ উদ্যোগে শাড়ী, লুঙ্গী ও কম্বল নিয়ে তাদের পাশে এসে দাঁড়াই। এক শ্রেণির অসাধু ব্যক্তিরা বস্ত দখল করে বস্তি উচ্ছেদের পায়তারা করছে। আমার জীবন থাকতে বস্তিবাসীদের পুর্নবাসন না করে কোন প্রকারই বস্তি উচ্ছেদ করতে দেয়া হবে না। প্রয়োজনে আমার জীবন দিব। তবুও বস্তিবাসীদের পুর্নবাসন ছাড়া বস্তি উচ্ছেদ করতে দেব না।

NO COMMENTS